শঙ্খ বাজালে শরীরের এই সব রোগ থেকে মুক্তি পাবেন

You are currently viewing শঙ্খ বাজালে শরীরের এই সব রোগ থেকে মুক্তি পাবেন
Image by Sandeep Handa from Pixabay

আমরা সকলেই জানি যে শঙ্খ ফুঁকানো ভগবানকে সন্তুষ্ট করে, কিন্তু আপনি কি জানেন যে এটি আপনার স্বাস্থ্য এবং সুস্থতার জন্যও খুব উপকারী। শঙ্খ বাজানো আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। শাঁখা ফুঁকানো ছাড়াও শঙ্খের ভিতরে প্রচুর পরিমাণে জল পান করলে ত্বক ও শরীরের সমস্ত সমস্যা একেবারেই নষ্ট হয়ে যায়। চলুন দেখে নেওয়া যাক শঙ্খ ফুঁকানোর কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা।

 কথিত আছে শঙ্খ যেখানেই পৌঁছায় সেখানেই সমস্ত জীবাণু ধ্বংস হয়ে যায়। এই প্রসঙ্গে অনেক ব্যবহার আছে। আয়ুর্বেদ অনুসারে শঙ্খ ফুঁক দিলে পাকস্থলী, জয়েন্ট, লিভার, পাথর ইত্যাদি রোগ নিরাময় হয়। পুরাণ অনুসারে, শঙ্খ ফুঁকে সেই বোবা রোগীরা কথা বলার শক্তি পায়। এটি হৃদরোগীদের জন্যও একটি ওষুধ।

আধুনিক বিজ্ঞানের মতে, শঙ্খ ফুঁক আমাদের ফুসফুসের ব্যায়াম করে, এটি শ্বাসযন্ত্রের রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি জোগায়। পুজোর সময় শাঁখায় রাখা জল সবার গায়ে ছিটিয়ে দেওয়া হয়, যার রয়েছে জীবাণু ধ্বংস করার আশ্চর্য ক্ষমতা। আপনি যদি সেই জল পান করেন তবে খোসার জল স্বাস্থ্য এবং আমাদের হাড় ও দাঁতের জন্য খুব উপকারী। শঙ্খের জলে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং সালফারের মতো গুণ রয়েছে।

এর বৈজ্ঞানিক কারণ হল শঙ্খের খোসা একটি ভালো শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম। ব্রহ্মব্যত পুরাণ অনুসারে শঙ্খের খোসায় জল ঢেলে ঘরে ছিটিয়ে দিলে আশেপাশের পরিবেশ পবিত্র হয়।

শঙ্খ বাজালে শরীরের এই সব রোগ থেকে মুক্তি পাবেন

শঙ্খ বাজালে শরীরের এই সব রোগ থেকে মুক্তি পাবেন 1
Image by Irina Gromovataya from Pixabay

1. মুখ থেকে বলিরেখা দূর করুন

আপনি যদি মুখের বলিরেখা নিয়ে সমস্যায় পড়ে থাকেন, তাহলে শঙ্খ ফুঁক আপনাকে সাহায্য করতে পারে। আসলে শঙ্খ ফুঁকানোর সময় মুখের পেশী টানটান হয়ে যায় এবং মুখ থেকে সূক্ষ্ম রেখা চলে যায়।

2. শঙ্খ বাজালে ফুসফুস এবং ক্যান্সারের জন্য উপকারী

শঙ্খ বাজানো ফুসফুসের কার্যকারিতার উপরও কাজ করে এবং একই সাথে আমাদের ফুসফুস বিকৃত হয় না। এটি ফুসফুসকে সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে; উপরন্তু, এটি মানুষের শ্বাসযন্ত্রের সমস্যা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে।

3.শঙ্খ বাজালে উত্তেজনা এবং বিষণ্নতা হ্রাস করে

শঙ্খ ফুঁক বা ফুঁক দিলে আমাদের মানসিক চাপও দূর হয়। আসলে, নিয়মিত শঙ্খ ফুঁকলে আমাদের মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয়, যার ফলে আমাদের মন ঠান্ডা থাকে। এটি মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে।

4. এটা পেট ফাঁপা সঙ্গে সাহায্য করে
শঙ্খ ফুঁক আমাদের শরীরের বিভিন্ন পেশীতে সরাসরি প্রভাব ফেলে। শঙ্খ বাজানোর ফলে তা সংকুচিত ও প্রসারিত হয়, যার ফলে শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ব্যায়াম হয়। এর ফলে আপনার গ্যাসের সমস্যা হয় না এবং আপনার পেট সারা জীবন সুস্থ থাকে।

5. এটি কাশি, জন্ডিস, রক্তচাপের সমস্যায় সহায়ক
আপনার যদি কাশি, শ্বাসকষ্ট, জন্ডিস, উচ্চ রক্তচাপ বা ছোটখাটো হৃদরোগ থাকে, তবে সহজ সমাধান হল দিনে একবার শঙ্খ ফুঁকানো।

বিজ্ঞানীরা বিশ্বাস করেন যে শঙ্খ বাজানোর প্রভাব সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মিকে আটকাতে পারে। তাই সকাল-সন্ধ্যায় শঙ্খ ফুঁকানোর নিয়ম কার্যকর। বিখ্যাত বিজ্ঞানীর মতে, শঙ্খের ধ্বনি যতদূর পর্যন্ত, সমস্ত রোগের জীবাণু ধ্বংস হয়। পরিবেশ বিশুদ্ধ। শাঁখায় রয়েছে সালফার, ফসফরাস এবং ক্যালসিয়ামের মতো উপকারী উপাদান। এতে পানি জমে যায় এবং জীবাণুমুক্ত হয়। তাই শাস্ত্রে এটিকে শ্রেষ্ঠ ওষুধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। শঙ্খের খোসা খেলে হাঁপানি, হাঁপানি এবং যক্ষ্মা রোগের মতো জটিল রোগের পরিণতি কমে যায়।

শঙ্খ ফুঁকে অনেক রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়

শঙ্খ ফুঁকে অনেক রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়
Image by paitoon youlike from Pixabay

শঙ্খ বাজালে আপনার চারপাশের নেতিবাচক শক্তি নষ্ট হয় এবং ইতিবাচক শক্তি সঞ্চারিত হয়। শঙ্খের ধ্বনি যতদূর যায় রোগের জীবাণু ধ্বংস হয়।

শঙ্খ ফুঁ দিলে ইতিবাচক শক্তি আসে, যা আত্মবিশ্বাস বাড়ায়। শঙ্খ প্রাকৃতিক ক্যালসিয়াম, সালফার এবং ফসফরাস সমৃদ্ধ। প্রতিদিন শঙ্খ ফুঁক দিলে গলা ও ফুসফুসের রোগ সম্পূর্ণ নাশ হয়।

শঙ্খ বাজালে মুখের সমস্ত রোগ নাশ হয়। মুখ, শ্বসনতন্ত্র, শ্রবণতন্ত্র এবং ফুসফুসের জন্য ব্যায়াম হচ্ছে শঙ্খ বাজানো। শঙ্খ ফুঁকলে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়। এটাই আমাদের ভারতীয় সংস্কৃতির গুরুত্ব যেখানে ধর্মের বৈজ্ঞানিক দিক লুকিয়ে আছে।

Leave a Reply